কবিতা

হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা

প্রতিটি মানুষের জীবনে চোখ হচ্ছে মহামূল্যবান একটি সম্পদ। যার সাথে মানুষের মনের গভীর সম্পর্ক রয়েছে। কেননা মানুষের মনের ভাব প্রকাশ চোখের মাধ্যমে পাওয়া সম্ভব। তাইতো প্রতিটি মানুষ প্রিয়জনের চোখের দিকে তাকিয়ে মনের সকল কথা সহজেই উপলব্ধি করতে পারে। প্রিয়জনের চোখের সৌন্দর্য প্রশংসা করতে তারা প্রত্যেকেই বিভিন্ন ধরনের চোখ সম্পর্কিত কবিতা ছন্দ গুলো ব্যবহার করে থাকেন। এজন্য আজকে নিয়ে এসেছি আমাদের ওয়েবসাইটে আমরা হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা সম্পর্কিত একটি পোস্ট। আপনি আজকের এই পোস্ট থেকে আপনার চোখের সুন্দর সুন্দর প্রশংসা করতে পারবেন এবং সকলের মাঝে আমাদের হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা গুলো শেয়ার করে দিয়ে তাদেরকে চোখের সৌন্দর্য উপলব্ধি করাতে পারবেন। আপনাদের জন্য মূলত আমাদের আজকের এই পোস্টটিতে হরিণী চোখ নিয়ে কবিতাগুলো উপস্থাপন করা হয়েছে। আশা করছি এই কবিতা গুলো আপনাদের ভালো লাগবে।

প্রতিটি মানুষের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে চোখ। যার মাধ্যমে মানুষ পৃথিবীর আলো বাতাস ও সৌন্দর্য উপলব্ধি করতে পারে। চোখ দিয়ে মূলত মানুষকে পৃথিবীর সকল কিছু দেখে থাকে এবং প্রিয়জনকে চিনে থাকে। এসব মানুষের জীবনের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ যা মানুষের মনের ভাষা সহজেই ধরতে পারে। কেননা চোখ যেন মানুষের মনের কথা সুস্পষ্টভাবে প্রকাশ করে থাকে। তাইতো ব্যক্তিগত জীবনে প্রতিটি মানুষ প্রিয়জনের চোখের দিকে তাকিয়ে মনের ভাষা উপলব্ধি করে থাকেন।

চোখের সৌন্দর্য প্রকাশ করার জন্য প্রতিটি মানুষ প্রিয় দলের চোখে হরিণী চোখ কিংবা ডাগর ডাগর চোখ হিসেবে বিভিন্ন ধরনের চোখ সম্পর্কিত কবিতা ও ছন্দ গুলো ব্যবহার করেন। সাধারণত চোখের নির্দিষ্ট সৌন্দর্য রয়েছে। অনেকের চোখ রয়েছে ডাগর ডাগর আবার অনেকের হরিণী চোখ হয়েছে আবার কিছু কিছু মানুষের চোখ রয়েছে যাদের চোখ দিয়ে মনে হয় মায়া ঝরে পড়ে এগুলো হচ্ছে মায়াবী চোখ। যা সকলের কাছে অনেক পছন্দের হয়ে থাকে।

হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা

সুখের প্রশংসা করার জন্য অনেকেই প্রিয়জনের চোখকে হরিণী চোখ বলে থাকে। তাদের জন্য আজকে নিয়ে এসেছি আমাদের ওয়েবসাইটে আমরা হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা সম্পর্কিত একটি পোস্ট। আজকের এই পোস্ট থেকে আপনারা হরিণী চোখ নিয়ে কবিতাগুলো সংগ্রহ করতে পারবেন এবং আপনার প্রিয়জনের চোখের প্রশংসা করতে আমাদের আজকের এই হরিণী চোখ নিয়ে কবিতাগুলো ব্যবহার করতে পারবে। আপনাদের জন্য আমাদের আর্টিকেলটিতে হরিণী চোখ নিয়ে রোমান্টিক কবিতা গুলো সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে যেগুলো সংগ্রহ করে আপনাদের সকলের অনেক ভালো লাগবে। আপনি আপনার বন্ধুদের মাঝে আমাদের আজকের এই হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা গুলো শেয়ার করে তাদেরকে হরিণী চোখের সৌন্দর্য জানাতে পারবেন। নিচে হরিণী চোখ নিয়ে কবিতা গুলো তুলে ধরা হলো:

প্রেমাতুর নেত্র
নেত্র তাহার কাজল কালো, টানা টানা আখি
মায়াবীনি তনয়াটারে চোখের তারায় রাখি।
দৃষ্টিতে প্রেম ঝরে, হাসিতে স্নিগ্ধতা
যতই দেখি তারে, ঘিরে ধরে মুগ্ধতা।

চঞ্চলা হরিনী- চোক্ষেতে কামনা
তার হতে দূরে থাকা, সে তো বড় যাতনা!
পড়েছি প্রেমে আমি গভীর ঐ দৃষ্টিতে
এমন মোহময়ী আর নেই সৃষ্টিতে।

সঞ্চারিনী ভেবে করো নাকো ভুল
এ প্রেম পেতে ঠিক হবে ব্যাকুল,
স্বর্গের অপ্সরাও মেনে যাবে হার
ও চোখের প্রেমেতে পড়বো বারংবার।

অভিমানী দৃষ্টি
দৃষ্টি দিয়ে দংশিবে হায়, মতি বোঝা দায়-
চোক্ষে যেন অগ্নি ঝরে- কি করিবো হায়!
অভিমান-অনুযোগের মিশেল চোখের পাতায়,
তল হারিয়ে ঠাই না পায় চোখের গভীরতায়।

মায়ার বদলে সেথায় দেখি ক্রোধের তরী
তবুও চোখে জল জমেছে, যেন ঝরবে অশ্রুবারী!
অব্যক্ত কথারা বুঝি ভাসে চোখের কোনে,
নির্লিপ্ততা গেলেও দেখা মনটা সবই জানে।

ক্রোধান্বিত চোখের পানে তাকিয়ে থাকা দায়,
উদাসী চাহনীতে ঠিকই তোমায় জড়ায়;
চোখের ভাষা ঐ হৃদয়ের আরশি,
হেথায় কোন কপটতা নেই, অক্ষি দুঃসাহসি।

কবিতা-৩
প্রিয়র অপেক্ষায়
অক্ষিতে অশ্রুর সঞ্চার ঘটে রোজ,
হিয়া বোঝে না প্রিয়- কোথা পাই খোঁজ?
নয়নে নয়নে বাধা সে প্রনয় বাধন-
আনন্দ বদলে আজ হয়েছে রোদন!

চোখের গভীরতা মিছে কভু হয়?
হে প্রিয় এসো ফিরে, লাগে বড় ভয়।
দিকবিদিকশুন্য আজ চঞ্চল সে চোখ,
আখি আজও নেশাতুর তোমাতেই ঝোঁক।

কেন ফেলে গেলে চলে, হলে চোখের আড়াল?
অনুভূতির ব্যবচ্ছেদ করে ধারালো করাল!
চক্ষু মুদিলে আজও ভাসে সব স্মৃতি,
যেখানেই রও প্রিয় নিও মোর প্রীতি।

দুঃসাহসী প্রেমিক
শোনো হে শোনো কামিনী-
ও মায়বী চোখের অধিকারীনি-
জেনে নিও ডুবতে চাই আমি ঐ চোখে
দুঃসাহস কার মোরে রুখে?

কাজল কালো রেখো তোমার ঐ আখি,
ভুলেও দিও না মোরে ফাঁকি।
তুমি যে নীল নয়না,
তোমাকে না পাবার আছে বড় যাতনা।

ও চোখের গভীরতায় দিবো আমি ডুব,
হৃদয়ের প্রতিচ্ছবি দেখা হবে খুব।
নয়নে নয়ন রাখো রূপসী-
প্রনয়ের ডোরে বাধবো তোমায়, করবো প্রেয়সী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button