কবিতা

বাবুই পাখি কবিতা | স্বাধীনতার সুখ – বাবুই পাখির বাসা

প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আপনাদের সবাইকে জানাচ্ছি আমাদের ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। তাহলে আপনাদের সকলের উদ্দেশ্যে আমাদের ওয়েব সাইটে নিয়ে এসেছে একটি কবিতা সম্পর্কিত পোস্ট। এই পোস্টটিতে আমরা বাবুই পাখি কবিতাটি তুলে ধরব। অধিকাংশ মানুষের মাঝে একটি জনপ্রিয় কবিতা হচ্ছে বাবুই পাখি কবিতা। এই কবিতাটির বিষয়বস্তু মূলত আমাদেরকে পরের সম্পদের ভরাই না করে বরং নিজের পরিশ্রমের মাধ্যমে তৃপ্ত থাকার প্রতি আহ্বান প্রদান করে। তাইতো অনেকেই বাবুই পাখির কবিতাটি অনুসন্ধান করে থাকেন। এজন্যই আমরা আজকে আমাদের ওয়েবসাইটে আপনাদের উদ্দেশ্যে বাবুই পাখি কবিতাটি তুলে ধরেছি। এই কবিতাটির মূলভাব আপনাদেরকে বাস্তব জীবনে বিভিন্ন বিষয়ের অনুপ্রেরণা দান করতে সাহায্য করবে। তাই আশা করা যায় আমাদের এই কবিতাটি আপনাদের উপকারে আসবে।

সকলের মাঝে অধিক পরিচিত একটি কবিতা হচ্ছে বাবুই পাখির কবিতা। কবিতাটির রজনীকান্ত সেন লিখেছেন। এই কবিতার মাধ্যমে তিনি পরের সম্পদ নিয়ে বড়াই করার পরিবর্তে নিজের উপার্জিত সম্পদের সন্তুষ্ট থাকার কথা বলেছেন। কবিতার মাধ্যমে মূলত আমরা বাস্তব জীবনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে শিক্ষা নিতে পারি এবং পরের অট্টালিকায় না থেকে বরং নিজের অর্জিত কুড়ের ঘরে থেকে সুখে এবং সন্তুষ্টিতে জীবন অতিবাহিত করার প্রেরণা লাভ করে থাকি। এই কবিতার মাধ্যমে মূলত ব্যক্তি ওইসব ব্যক্তিদের কথা বলেছেন যারা প্রতিনিয়ত পরে সম্পদের ঘরেই করে পরের অর্থলিকায় নিজের জীবন বিলাসিতাই কাটিয়ে থাকেন। তারা মূলত বাস্তব জীবনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিপদের সম্মুখীন হয়ে থাকেন। তাইতো তিনি তাদেরকে এই কবিতার মাধ্যমে জানিয়েছেন পরের অট্টালিকা নিয়ে বলেন না করে বড় নিজের জীবনে পরিশ্রম করে সম্পদ উপার্জন করতে। যা আমাদেরকে জীবনে পরিশ্রমই হতে সাহায্য করে এবং নিজের সফলতা অর্জনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

বাবুই পাখি কবিতা

রজনীকান্ত সেনের অন্যতম একটি কবিতা হচ্ছে বাবুই পাখি কবিতাটি। এই কবিতাটি মূলত আমরা রজনীকান্ত সেনের বাসায় সমাজের কিছু মানুষের কথা জানতে পারি যারা প্রতিনিয়ত অন্যের সম্পদের উপর ভোগ করে বিলাসিতা এবং অট্টালিকার বড়াই করে থাকেন। তিনি বাবুই পাখির মাধ্যমে সমাজের সেইসব ব্যক্তিদের পরিচয় তুলে ধরেছেন এবং তাদেরকে নিজের অর্জিত সম্পদের উপর কর্তৃত্ব ফলাতে বলেছেন। তাইতো অনেকেই অনলাইনে বাবুই কবিতাটি অনুসন্ধান করে থাকেন। তাদের জন্য আজকে তুলে ধরেছি আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে বাবুই পাখি কবিতাটি। এই কবিতাটি আপনাদেরকে বাস্তবতার বিভিন্ন ক্ষেত্রে শিক্ষা দান করবে এবং পরের সম্পদের বড়াই করা থেকে বিরত রাখবে। নিচে বাবুই পাখি কবিতাটি আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করা হলো:

স্বাধীনতার সুখ
             —রজনীকান্ত সেন

বাবুই পাখিরে ডাকি, বলিছে চড়াই,
“কুঁড়ে ঘরে থেকে কর শিল্পের বড়াই,
আমি থাকি মহাসুখে অট্টালিকা পরে
তুমি কত কষ্ট পাও রোদ, বৃষ্টি, ঝড়ে।”

বাবুই হাসিয়া কহে, “সন্দেহ কি তাই ?
কষ্ট পাই, তবু থাকি নিজের বাসায়।
পাকা হোক, তবু ভাই, পরের ও বাসা,
নিজ হাতে গড়া মোর কাঁচা ঘর, খাসা।”

—————

বাবুই পাখি কবিতা ইংরেজিতেঃ

The Joy of Independence
– Rajanikanta Sen

Says the Sparrow to the Weaver Bird
“Look where I live – a mansion, no less!
While your nest barely shields you from the wind and the rain.
Yet you prize it as art?”

The Weaver Bird smiles, “There is no doubt,
that my nest sways in the slightest wind,
but I live in it gladly,
for unlike the mansion you share with humans
my house is mine and mine alone.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button